1. babuibasa@gmail.com : editor :
  2. saskotha0@gmail.com : নিউজ ডেস্ক : এস এম সজল
মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০১:৩২ অপরাহ্ন

একজন সাধারন পৌর নাগরিকের শুভেচ্ছা গফরগাঁওয়ের মেয়র মহোদয় এর প্রতি।

রিপোর্টারঃ
  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ২৭ মার্চ, ২০২১
  • ১৩৪ জন সংবাদটি পড়েছেন

তখন রাত ১২:৩০ আব্বা আমি আমার স্ত্রী গৃহ পরিচিকাসহ পরিবারের চারজন করোনায় আক্রান্ত। ইমার্জেন্সী ভাবে কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতাল থেকে এম্বু্ল্যান্স পাঠিয়ে আমাদের ঢাকা নিয়ে যাবার ব্যবস্থা করা হলো। এম্বুল্যান্সে উঠার পরই গফরগাঁও পৌরসভার সম্মানিত মেয়র মহোদয় S M Iqbal Hossain Sumon ভাই ফোন দিয়ে খোজ নিলেন। ভোর চারটায় হাসপাতালে ভর্তির আগ পর্যন্ত উনি খোজ নেওয়া অব্যাহত রাখলেন।

এরকম হাজারো উধাহরণ আছে যে পুরো করোনার অতি মহামারি সময়ে যখন তিনি দিন রাত মানুষের কাজ করেছেন এমনকি নিজে করোনায় আক্রন্ত হয়ে ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়েও মানুষের পাশ থেকে সরে দাড়াননি। যার ফলে তিনি মানুষের ভালোবাসার পাত্র হয়ে উঠেছেন নির্ধিদায় এবং জনগনের ভোটে দ্বিতীয় বারের মত মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

করোনার পরবর্তী জীবনটা আমি বেশীরভাগ সময় গফরগাঁওয়েই অবস্থান করেছি। পৌর এলাকার নানা পথ গলিপথ হেটে বেড়িয়েছি। আমার কাছে এতদিনে গফরগাঁও এ একটি পৌরসভার আদর্শ পরিবেশ তৈরি হচ্ছে। পৌর এলাকার ভিতরে রাস্তা এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থার যথেষ্ট উন্নয়ন হয়েছে, হচ্ছে এবং এসব নির্মান প্রকল্প চলা কালিন সময়ে ওনাকে সর্বদাই বিশেষ করে গভীর রাতে ঘুরে ঘুরে পরিদর্শন করতে দেখেছি।
এই কাজগুলো করতে ওনার প্রায় সময়েই প্রতিকূলতার সম্মুখিন হতে হয়েছে যা ছিলো স্বাভাবিক কিন্তু ওনি সেই প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করেছেন খুব সাবলিল ও সুন্দর পরিবেশের মাঝে। অনেক সময় আমার নিজেরও কিছু সাময়িক ক্ষতি হয়েছে তা অস্বীকার করবোনা কিন্তু একজন শিক্ষিত এবং সচেতন দূরদৃষ্টি সম্পন্ন পৌর নাগরিক হিসাবে যদি নিজেকে চিন্তা করি তবে এই সাময়িক ক্ষতি অদূর ভবিষ্যতে আমার জন্যই কল্যান বয়ে আনবে।
যেমন ধরা যাক পৌর এলাকার ড্রেনেজ ব্যবস্থা উন্নয়নে অনেক বাসা এবং বানিজ্যিক কমপ্লেক্সের বারান্দার আংশিক ভাঙ্গা পরেছে। এতে সাময়িক ভাবে নাগরিকের একটা ক্ষোভ সৃষ্টি হতে পারে কিন্তু আমরা যদি ভবিষ্যত এবং পরবর্তী প্রজন্মের কথা চিন্তা করি তবে এই নতুন ড্রেনেজ ব্যবস্থা গফরগাঁও পৌরসভাকে ২০ বছর এগিয়ে নিয়ে যাবে। যেভাবে পৌর এলাকায় আবাসিক বহুতল বিল্ডিং গড়ে উঠেছে, পূর্বের ডোবা পুকুর ভরাট হচ্ছে ভবিষ্যতে বাসা বাড়ির সুয়ারেজের জন্য এই ড্রেনেজ ব্যবস্থার বিকল্প নেই।

এবার আসি ভিন্ন এক প্রসঙ্গে। এই সকল উন্নয়নের সময় কিছুটা নাগরিক সমস্যা হয় বটে। একদিনে একটি রাস্তা বা ড্রেন করা সম্ভব না। কিন্তু আমরা যদি একটু ভিন্ন পৌরসভার দিকে তাকাই তবে মূল বিষয়টা বুঝতে পারবো। গত সেপ্টেম্বর মাসে আমি সাভার আসি একটি বিশেষ কাজে। গফরগাঁও এর মত একই রকম রাস্তা ও ড্রেনেজের কাজ শুরু হয় তখন সাভারের কিছু এলাকায়। সাভার স্বাভাবিক ভাবে গফরগাঁও থেকে ব্যস্ত এলাকা, জনসংখ্যাও অনেক বেশী। আজ মার্চ মাস শেষ নাগরিক দূর্ভোগ চরম পর্যায়ে কিন্তু উন্নয়নের কাজ শেষ হয়নি রাস্তার পাশে বিশাল বিশাল গর্ত। গর্তের মাটি দিয়ে রাস্তার যায়গা দখল খোজ নিয়ে জানলাম এই দূর্ভোগের খোজ কেউ নেয়না।
আমার এই প্রসঙ্গে আসার মূল উদ্দেশ্য ছিলো ঠিক একই সময়ে কাজ শুরু হয়ে গফরগাঁও এ কাজগুলো প্রায় শেষ আর কাজও থেমে ছিলোনা। এখানেই আমাদের পৌর মেয়র ভিন্ন অন্যদের থেকে।
তারপরেও একজন মানুষ হিসাবে ওনিও সীমাবদ্ধতার উর্ধে নন। পৌর প্রতিষ্ঠানটির পদাধিকার হিসাবে ওনারও কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। আমি নিশ্চিত এগুলো ওনিও জানেন কিন্তু বাস্তবায়নের সুযোগ কিংবা সহযোগিতা ওনি পাচ্ছেন না।

যেমন পৌর এলাকার আবাসিক বাসাগুলো থেকে ময়লা আবর্জনা পৌরব্যবস্থাপনায় সংগ্রহ করে তা ওয়াস্ট মেনেজম্যান্ট প্রকল্পতে আনা। এবং যত্র তত্র ময়লা আবর্জনা ফেলা বন্ধ করে একটি পরিচ্ছন্ন পৌরসভা গড়ে তুলা।

পৌর এলাকায় শিশু কিশোর এবং সকলের জন্য পার্ক এবং খেলার ধূলার জন্য নিদৃষ্ট মাঠের ব্যবস্থা করা

এবং যত্র তত্র অটো রিক্সা, সি এন জি স্ট্যন্ড না করা।

আজ ২৭ মার্চ ২০২১ গফরগাঁও পৌর মেয়র মহোদয়ের জন্মদিন। জন্মদিনে ওনার সুস্বাস্থ্য এবং দির্ঘায়ু কামনা করি এবং আশাকরি পৌর এলকার বাকী উন্নয়নের কাজগুলো অচিরেই ওনার হাত ধরেই বাস্তবায়িত হবে।

শুভ কামনা রইলো।
মো: ইমরান শাহরিয়ার
সাধারন পৌর নাগরিক
গফরগাঁও পৌরসভা।

এস এম সজল/ব্যতিক্রম নিউজ

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২১ ব্যতিক্রম নিউজ কর্তৃক সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
Developer By Zorex Zira